শিরোনাম: আসাম-ত্রিপুরায় সেনা মোতায়েন       টাঙ্গাইলে হানাদার মুক্ত দিবস পালিত       মুসলিমরা ভারতের নাগরিক ছিলেন, আছেন, থাকবেন : অমিত শাহ       সভাপতি মোতাহার, সম্পাদক মতিয়ার       খালেদা জিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট বদলে ফেলার চেষ্টা চলছে : মির্জা ফখরুল       কুষ্ঠরোগীদের দেখে দূর-দূর করবেন না : প্রধানমন্ত্রী       ‘সৎ সাহস থাকলে প্রমাণ নিয়ে সামনে আসুন’       উলঙ্গ হয়ে প্রতিবাদ!       খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি বৃহস্পতিবার       গণতন্ত্রের আইকন থেকে গণহত্যার আসামি সু চি      
‘এনআরসি মুসলিমদের দেশছাড়া করার হাতিয়ার’
কাগজ ডেস্ক :
Published : Monday, 18 November, 2019 at 8:49 PM
‘এনআরসি মুসলিমদের দেশছাড়া করার হাতিয়ার’ভারতের আসাম রাজ্যে কয়েক মাস আগে যে জাতীয় নাগরিক তালিকা (এনআরসি) প্রকাশ করা হয়েছে তা আসলে সংখ্যালঘু মুসলমানদের রাষ্ট্রহীন করে তোলার একটি হাতিয়ার। এমনটাই অভিযোগ করেছে আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা সম্পর্কিত একটি ফেডারেল মার্কিন কমিশন। চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা থেকে ইতিমধ্যে ১৯ লাখ মানুষ বাদ পড়েছে যাদের মধ্যে অনেক বাঙালি হিন্দু ধর্মাবলম্বীও রয়েছেন।
এই এনআরসির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে যুক্তরাষ্ট্রের ‘ইউএস কমিশন অন ইন্টারন্যাশনাল রিলিজিয়াস ফ্রিডম’ (ইউএসসিআইআরএফ) সংগঠন জানিয়েছে যে, আসামের বাঙালি মুসলিম সম্প্রদায়ের ভোটাধিকার কেড়ে নিতে এবং তাদের রাষ্ট্রহীন করে তোলার উদ্দেশ্যেই এই কর্মসূচি নিয়েছে ওই রাজ্যের প্রশাসন।
শুক্রবার ‘ইস্যু ব্রিফ: ইন্ডিয়া’ শিরোনামে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ইউএসসিআইআরএফ জানায়, এনআরসি ‘ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের লক্ষ্যবস্তু করার একটি সরঞ্জাম এবং বিশেষত, ভারতীয় মুসলমানদের রাষ্ট্রহীন করে তোলাই এর উদ্দেশ্য। ভারতের অভ্যন্তরে ধর্মীয় স্বাধীনতার অবস্থার নিম্নমুখী প্রবণতার এটি একটি বড় উদাহরণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।’
নীতি বিশ্লেষক হ্যারিসন আকিনসের তৈরি করা ওই প্রতিবেদনে ইউএসসিআইআরএফ অভিযোগ করেছে যে, ২০১৯ সালের আগস্টে এনআরসি তালিকা প্রকাশ পাওয়ার পরেই বিজেপি সরকার এমন পদক্ষেপ নিয়েছে যা মুসলিম বিরোধী পক্ষপাতিত্বকেই প্রতিফলিত করে।
ইউএসসিআইআরএফ আরো বলেছে, ‘বিজেপি ভারতীয় নাগরিকত্বের জন্য একটি ধর্মীয় পরীক্ষা তৈরির লক্ষ্যে ইঙ্গিত দিয়েছে যাতে হিন্দুরা এবং কিছু ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা বেঁচে যাবে ঠিকই, তবে বাদ পড়বেন বিপুল সংখ্যক মুসলমানরা।’বাস্তবে সেটাই হয়েছে।
আর কেবল যুক্তরাষ্ট্রের ইউএসসিআইআরএফ নয়, এই এনআরসি নিয়ে ইতিমধ্যে আরো বেশ কয়েকটি দেশি ও আন্তর্জাতিক সংস্থা উদ্বেগ প্রকাশ করছে।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft