শিরোনাম: সোশ্যাল মিডিয়ায় দেশবিরোধী তথ্য প্রচার হলে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা       পুলিশের হেফাজতে ওসি প্রদীপ, নেওয়া হচ্ছে কক্সবাজার আদালতে       করোনা মোকাবিলায় এডিবির আরও ১৫ কোটি টাকা অনুদান       সরকার দুর্নীতিকে সংরক্ষণ করতে চায় : রিজভী       সাহেদের দশ দিনের রিমান্ড চায় দুদক       মহেশপুরে সরকারি রাস্তা দখল করে পাঁকা ঘরবাড়ি নির্মাণ, বিপাকে একশ পরিবার       চুয়াডাঙ্গায় নতুন করে ৭১ জনের করোনা শনাক্ত       রাঙ্গামাটিতে পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষা শুরু       পশ্চিমবঙ্গে ভয়াবহ আকার নিচ্ছে করোনা, আরো ৬১ জনের মৃত্যু       ট্রাম্পের অ্যাকাউন্টে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ট্যুইটার      
ভাই-ভাইপোদের ভয়ে বাড়িতে পাহারাদার নিয়োগ!
উজ্জ্বল রায়, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি
Published : Monday, 13 July, 2020 at 9:58 PM
ভাই-ভাইপোদের ভয়ে বাড়িতে পাহারাদার নিয়োগ!ভাই ও ভাইপোদের ভয়ে রাতে বাড়িতে পাহারাদার নিযুক্ত করেছেন শেখ মাহাবুর রহমান নামে এক কৃষক। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি মণিরামপুর উপজেলার শেখপাড়া রোহিতা গ্রামে।
অভিযোগে জানা যায়, রোহিতা ইউনিয়নের শেখপাড়া রোহিতা গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজ শেখের ছেলে শেখ মাহাবুর রহমান জায়গা-জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে আপনভাই ও ভাতিজাদের হামলার ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। দু’মাস ধরে স্ত্রী, তিন মেয়ে ও নিজের নিরাপত্তা চেয়ে পুলিশসহ স্থানীয় মাতব্বরদের কাছে ধর্ণা দিয়েও কোনো প্রতিকার পাননি তিনি। যে কারণে নিজেই পাহারাদার নিযুক্ত করেছেন।
মাহাবুর শেখ অভিযোগ করেন, ২৩ বছর আগে তিনি মায়ের কাছ থেকে তিন শতক জমি কেনেন। কিন্তু হঠাৎ মায়ের মৃত্যু হওয়ায় তিনি জমিটি নিজের নামে দলিল করাতে পারেননি। এরপর ছয় ভাই-বোনের মধ্যে পাঁচজন মাহাবুরকে সেই জমি ছেড়ে দেন। কিন্তু তার সেজোভাই মুজিবর রহমান মুইজে জমির দাবি ছাড়েননি। মুজিবর নিজের অংশ বুঝে নেয়ার পর মাহাবুর তার অংশে ইটের ঘর তোলেন। এক পর্যায়ে মুজিবর তার ছেলে মেহেদী হাসেনের নামে গোপনে মাহাবুরের বসতভিটার অংশ থেকে তিন শতক জমি রেজিস্ট্রি করিয়ে নেন। এনিয়ে মুজিবর ও মাহাবুরের বিরোধ আরও তীব্র হয়। এর জের ধরে দু’মাস আগে সংঘর্ষও হয়। ওই সময় মুজিবরের করা মামলায় মাহাবুর জেল খাটেন।
মাহাবুর বলেন, ‘জেল থেকে আসার পর আমার পরিবারকে নানা ধরনের হুমকি দিয়ে আসছে মুজিবর ও তার তিন ছেলে সোহাগ, মেহেদী ও জাহিদ। আমি স্ত্রী সুফিয়া খাতুন এবং তিন মেয়েকে নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। মেয়েদের মধ্যে একজন কলেজে ও দু’জন স্কুলে পড়ে। ভয়ে আমার মেয়েরা বাইরে বের হতে পারে না। ঘরের জানালা দরজা ভাল না। রাতে ঘুমোতে পারিনা-প্রায় সারারাত জেগে থাকতে হয়। যে কোনো সময় আমার মেয়েদের উপর হামলা হতে পারে। এমনকি এসিড নিক্ষেপ করতে পারে ওরা। সেই ভয়ে মাসিক দেড় হাজার টাকা বেতনে মদন শেখ নামে একজনকে রাতে পাহারাদার নিযুক্ত করেছি। দেড় মাস ধরে সে ডিউটি করছে। যেদিন পাহারাদার আসে না সেদিন সবাইকে নিয়ে জেগে থাকতে হয়’।
সরেজমিন রোববার রাতে গিয়ে মাহাবুরের বাড়িতে পাহাদারকে দায়িত্বরত অবস্থায় পাওয়া যায়। তিনি বলেন, ‘মারামারির পর থেকে মাহাবুরের পরিবারের মধ্যে ভয় ঢুকেছে। তাই তারা আমাকে দেড় হাজার টাকা মাসিক চুক্তিতে রেখেছেন। আমি সন্ধ্যার পর আসি। সকালে লোকজন ঘুম থেকে উঠলে চলে যাই’।
অভিযুক্ত মুজিবর শেখ বলেন, ‘জমি নিয়ে আমাদের বিরোধ। সেই বিরোধ নিয়ে আমার স্ত্রী ও ছেলে মেহেদীকে-মাহাবুর ও তার মেয়েরা মেরেছে। তাই নিয়ে কোর্টে মামলা চলছে। আমার ছেলেরা বাইরে কাজে গেছে। আমরা কাউকে কোনো হুমকি দিইনি’।
স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ রাসেদ হোসেন বলেন, ‘মাহাবুর বাড়িতে পাহারাদার রেখেছে কিনা জানি না। আমরা আগামী মঙ্গলবার (আজ) বিকেলে বিষয়টি নিয়ে গ্রামে বসব’।
এব্যাপারে মণিরামপুর থানার এস আই খান আব্দুর রহমান বলেন, ‘জমি নিয়ে মাহাবুর ও তার ভাইয়ের মধ্যে বিরোধ চলছে। তবে জমির সমস্যা মিটলে সব সমাধান হয়ে যাবে। আমি সরেজমিন গিয়ে বিষয়টি স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা রাসেদকে সমাধানের জন্য দায়িত্ব দিয়েছি। সে যে সিদ্ধান্ত নেয় সেটা আমাদের জানাতে বলেছি’।
মাহাবুরের বাড়িতে পাহারাদার রাখার ব্যাপারে জানতে চাইলে এস আই আব্দুর রহমান বলেন, ‘ওটা মাহাবুরের মনের দুর্বলতা’।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft