শিরোনাম: সোশ্যাল মিডিয়ায় দেশবিরোধী তথ্য প্রচার হলে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা       পুলিশের হেফাজতে ওসি প্রদীপ, নেওয়া হচ্ছে কক্সবাজার আদালতে       করোনা মোকাবিলায় এডিবির আরও ১৫ কোটি টাকা অনুদান       সরকার দুর্নীতিকে সংরক্ষণ করতে চায় : রিজভী       সাহেদের দশ দিনের রিমান্ড চায় দুদক       মহেশপুরে সরকারি রাস্তা দখল করে পাঁকা ঘরবাড়ি নির্মাণ, বিপাকে একশ পরিবার       চুয়াডাঙ্গায় নতুন করে ৭১ জনের করোনা শনাক্ত       রাঙ্গামাটিতে পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষা শুরু       পশ্চিমবঙ্গে ভয়াবহ আকার নিচ্ছে করোনা, আরো ৬১ জনের মৃত্যু       ট্রাম্পের অ্যাকাউন্টে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ট্যুইটার      
বর্ষার কান্না ও করোনাকাল
মাহমুদা রিনি :
Published : Monday, 13 July, 2020 at 10:49 PM
বর্ষার কান্না ও করোনাকাল  বর্ষাকাল কবিদের জন্য উর্বর চাষের অখন্ড আকাশ, তারা মেঘে মেঘে স্বপ্ন বোনে, ফসল ফলায়-জন্ম হয় কবিতার! এবারের বর্ষা যেন কাব্য নয় সাথে কান্না নিয়ে এসেছে। রিমঝিম বৃষ্টি ধারার সাথে মিশছে নিয়মিত অশ্রু ধারা।
পৃথিবী এখন রোগাক্রান্ত। কোবিদ উনিশ করোনা ভাইরাস এর তাণ্ডব আস্ফালন চলছে। লক্ষ লক্ষ মানুষের মৃত্যু, কোটি মানুষের আক্রান্ত হওয়া, কর্মহীন মানুষের অনিশ্চিত দিন যাপনের হাহাকার বেড়েই চলেছে। স্থবির শিক্ষা ব্যবস্থা, শিক্ষা বর্ষ থেকে একটি বছর হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা এবং শিক্ষার্থীদের বিপর্যস্ত মানসিক অবস্থা ছাড়াও আরো অসংখ্য সমস্যার ফাঁদে জর্জরিত জনজীবন।
প্রতিদিনের সংবাদে মৃত্যুর স্কোরবোর্ড, আক্রান্তের সংখ্যা আমাদের মনোজগতে আঘাত করছে। ভেঙে দিচ্ছে মনোবল। সত্যিই ভাবিয়ে তুলছে কি হতে যাচ্ছে আগামী দিন!
প্রথম দিকে মনে হতো আমরা এই ভয়াবহ বিপর্যয় থেকে হয়তো শিক্ষা নিচ্ছি। আমাদের মনোজগতে পরিবর্তন আসবে, যা আমাদের এই ভয়াবহতা থেকে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করবে। হাজার বছরের ইতিহাসে নজিরবিহীন বিশ্ব মহামারীর সাক্ষী আমরা। মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আমরা বুঝতে শিখবো আমাদের ভুল কোথায়! উপলব্ধি করতে পারবো-মানুষের জন্যই মানুষ। কেউ আমরা একা বাঁচতে পারি না। সমাজবদ্ধ জীব হিসাবে মানুষের সাথে মানুষের সম্পর্কে প্রভুত্ব নয় প্রয়োজন মমত্ব, ভাতৃত্ব বোধের।
কিন্তু আমরা কিভাবে ভাবছি বা দেখছি এই সময়টাকে? কেন যেন মনে হচ্ছে আমাদের সহজাত প্রবৃত্তি পাল্টে যাচ্ছে। মানুষ শব্দটি বলতে যা বুঝায় তার জীনগত পরিবর্তন ঘটে গেছে! কেন মনে হচ্ছে এখন আমাদের মানুষ নামের অভ্যন্তরে সহজাত প্রবৃত্তি বিভক্ত হয়ে ভিন্ন ভিন্ন স্বত্বার প্রকাশ ঘটছে।
বিশ্ব ব্যাপি এই মহামারী কালীন সময়েও মৃত্যুর চেয়ে লোভ, কামনা, স্বার্থ, সম্পদ যখন বড় মনে হয় তখন মানুষ নামের জীনগত বৈশিষ্ট্যের সাথে তা কিভাবে মেলানো সম্ভব বোধগম্য হয় না। অধিকাংশ মানুষ ভুগছে অন্ন,বস্ত্র, চিকিৎসা, বাসস্থানের অনিশ্চয়তায়। সাধারণ মানুষের জীবন যখন মারাত্মক রকমের পর্যদুস্ত, জীবন মরণের এমন সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়েও আরেক শ্রেণির মানুষের ভিতরে বাজছে লোভের করতাল। নির্বিবাদে চলছে লুটপাট, ঘটছে হাসপাতাল কেলেংকারী, ভেজাল ওষুধের কারবার, ঠুনকো স্বার্থে মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা।
প্রতিনিয়ত বাড়ছে পারিবারিক সহিংসতা। অসহিষ্ণুতার মাত্রা ছাড়িয়ে নির্যাতন এমনকি খুন-হত্যার মতো ঘটনা ঘটছে অহরহ। ধর্ষণের শিকার হচ্ছে শিশু থেকে যে কোন বয়সের নারী। ক্রমাগত পরিস্থিতি যেন মানবিক মূল্যবোধের বাইরে বেরিয়ে যাচ্ছে।
অথচ আমাদেরই চোখের সামনে ঘটে যাচ্ছে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করা মানুষের স্বজনহীন নীরব চিরবিদায়। এই পরিবেশ আমাদের পরিচিত নয়। প্রতিবেশীর বিপদে ঘরে খিল এঁটে বসে থাকা আমাদের আজন্ম পরিচিত সামাজিক নিয়মের মধ্যে পড়ে না। আমরা এখন তাই দেখছি। স্বজনের স্পর্শহীন শেষ সময়ের কথা ভাবলেও আমাদের অনুভূতি নিস্তব্ধ হয়ে আসে। অথচ আমরা সেই সময়টাই পার করছি। সময় কি আমাদের কোন শিক্ষা দিতে চাইছে যা আমরা কোনভাবেই বুঝতে নারাজ।
প্রকৃতির নিজস্ব ধারায় সকল জীব-জীবন ও প্রকৃতি নিজেও একধরণের সহজাত প্রবৃত্তির নিয়মে বাধা। মানুষও নিশ্চয়ই সেই নিয়মের বাইরে নয়! বুদ্ধিমান প্রাণী হিসাবে মানবিক মূল্যবোধ, মায়া-মমতা, ন্যায় নীতি, আদর্শ, শিক্ষাকে সহজাত করে মানুষই সবচেয়ে সুশৃঙ্খল জাতি হিসেবে গড়ে ওঠার কথা। কিন্তু খেয়াল করলে মনে হয় প্রকৃতিতে মানুষই সবচেয়ে বিশৃঙ্খল জাতি। তাহলে মানুষের প্রবৃত্তিই কি ভিন্ন ভিন্ন প্রকৃতির? শ্রেণী বৈষম্যের পাশাপাশি মানবিক বৈষম্য বোধও মানুষকে ভিন্ন ভিন্ন মানসিক ও সহজাত প্রবৃত্তির দিকে ঠেলে দিয়েছে।
বর্তমানে এই করোনা ভাইরাস এর সাথে সম্মুখ সমরে জীবন বাজি রেখে লড়ছেন সারা পৃথিবীর মানুষ। বিশেষ করে ডাক্তার, পুলিশ, সাংবাদিক ভাই বোনেরা। জীবন হাতে নিয়ে মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়েছেন সাধারণ মানুষও। প্রাণহানিও ঘটছে মানুষের কল্যাণে কাজ করা অসংখ্য মহৎপ্রাণ গুণী মানুষের। অথচ তার উল্টো দিকেই চলছে আরেক শ্রেণির অরাজকতা, নৃশংসতা। মাঝখানে অবরুদ্ধ সাধারণ মানুষ হতবাক, দিশেহার,  আশা নিরাশার দোলায় দোদুল্যমান।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft